[TechSa #4] এক নজরে জেনে নিন Search Engine সম্পর্কে।

ইন্টারনেট যগতে Search Engine হল এমন একটি ইঞ্জিন/যন্ত্র (নির্দিষ্ট কিছু প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ ও বিভিন্ন এলগরিদম ব্যবহার করে তৈরি একটি বিশেষ ধরনের অনলাইন প্রোগ্রাম) যার মাধ্যমে আমারা ইন্টারনেটে কোনো কিছু খুঁজে থাকি। এটি ইন্টারনেট নির্ভর একটি ওয়েব সার্ভিস। অর্থাৎ জানা অজানা গান, ছবি, ভিডিও,বিভিন্ন ধরনের ইনফরমেশন আমরা যে ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে সার্চ করে বের করি সেটিই সার্চ ইঞ্জিন।
এর মধ্যে অতি পরিচিত একটি সার্চ ইঞ্জিন হল Google। এছাড়া Yahoo, Ask, Being, Duckduckgo বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। বাংলাদেশি ডেভেলপারদেরও একটি সার্চ ইঞ্জিন আছে যেটা হল পিপিলিকা(pipilika)।

সার্চ ইঞ্জিন কীভাবে কাজ করে?
=> এটি মূলত কিছু এলগরিদম অনুসরণ করে যা প্রোগ্রামার আগে থেকেই এর মধ্যে অস্তমিত করে রাখেন। আর এই এলগরিদম সঠিকভাবে যেন কাজ করতে পারে তার জন্য সার্চ ইঞ্জিনকে অপটিমাইজেশন করা হয় যাকে অনেকে SEO(Search Engine Optimization) বলে চিনে থাকেন । আর এই SEO করার ফলে আমরা কোনো কিছু সার্চ করলে তার সাথে সম্পৃক্ত ওয়েব সাইটগুলো আমাদের সামনে দেখায়। যে ওয়েবসাইটের SEO যত ভাল হয় সেই ওয়েবসাইট সার্চ রেজাল্টের তত উপরে দেখায়। আর এভাবেই মূলত আমরা খুব সহজে ইন্টারনেটে কোনো কিছু খুঁজে পাই। জেনে রাখা ভাল যে Google, Yahoo, DuckDuckGo একই ধরনের SEO অনুসরণ করেনা।

সার্চ ইঞ্জিন থেকে কী কোনো কিছু Download করা যায়?
=> আমরা অনেকেই বলে থাকি যে “Google থেকে Download করেছি “। আসলেই Google থেকে কিছু Download করা যায়! চলুন জেনে নেওয়া যাক। গুগল (সকল সার্চ ইঞ্জিনের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য) একটি সার্চ ইঞ্জিন যা কেবল আমরা কোনো কিছু সার্চ করলে গুগল সেসকল website গুলোই সুপারিশ করে থাকে। আর ওইসকল website এ আমাদের সার্চ করা বিষয়বস্তু সংরক্ষিত থাকে। এমনকি image এর ক্ষেত্রে Google থেকে image এর ওপর click করে “Save as image” এর মাধ্যমে আমরা যে Download করে থাকি মূলত সেটাও Google থেকে download করা হয়না। সেটি অন্যকোনো একটি website থেকে google এর মাধ্যমে download হয়। অর্থাৎ আমরা search engine থেকে কিছু download করতে পারিনা। বরং শুধু মাত্র search দিতে পারি ও সুপারিশকৃত Website থেকে dowload দিয়ে থাকি।

আজ এই পর্যন্তই। কোনো কিছু ভুল বলে থাকলে অনুগ্রহপূর্বক কমেন্টে মেনশন অথবা আরও কিছু জানার থাকলে জিজ্ঞেস করুন।

বিদ্রঃ SEO কিভাবে কাজ করে তা পরবর্তী কোনো একটি পোষ্টে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে। সে পর্যন্ত দেশী ড্রয়েড-এর সাথেই থাকুন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Previous Post

[TechSa #3] একনজরে জেনে নিন eSIM সম্পর্কে।

Next Post

[TechSa #5] স্মার্টফোনের যাবতীয় সেন্সর সম্পর্কে বিস্তারিত জানুন

Related Posts

[TechSa #1] Smart Phone কেনার পূর্বে যে বিষয়গুলো সম্পর্কে আপনাকে অবশ্যই অবগত হতে হবে !

Smart Phone! কথা বলতে চাচ্ছিলাম Smart Phone নিয়ে। আমরা সাবাই Feature Phone গুলোর সাথে পরিচিত। Feature Phone গুলো…
পড়ুন

ওয়েব হোস্টিং নির্বাচনের পূর্বে – প্রথম পর্ব

ইন্টারনেট(Internet) যেভাবে যোগাযোগ ব্যবস্থাকে করেছে উন্নত, ঠিক একইভাবে মানুষের কাছে পৌছানোটাকেও করেছে সহজলভ্য। আর এই সহজলভ্যতার রয়েছে যেমন…
পড়ুন

আমরা কতটুকু নিরাপদ সোশ্যাল মিডিয়া-এর হাত থেকে!

প্রযুক্তির উৎকর্ষের সাথে সাথে দৈনন্দিন জীবনে আমরা যতটা না নিজেদের বন্ধুদের চিনি তার থেকে বেশি চিনি আমাদের ভার্চুয়াল/কাল্পনিক…
পড়ুন