নীড় রিভিও Earphone Auglamour F200 রিভিউ - মিড বাজেটের পছন্দের ইয়ারফোন।

Auglamour F200 রিভিউ – মিড বাজেটের পছন্দের ইয়ারফোন।

আজকে নিয়ে আসলাম Auglamour (অগলামার /অগলমার ) F200 এর রিভিউ। অগলমার নামটি অনেকের কাছেই নতুন। আর নাম নতুন নতুন লাগলেও এই চাইনিজ কম্পানিটির রয়েছে বেস ভাল ভাল প্রোডাক্ট। তবে চলুন জেনে নেওয়া যাক অগলমার এফ২০০ ইয়ারফোনটির খুঁটিনাটি।

উন্মোচনঃ

ইয়ারফোনটি একটি শক্তপোক্ত সাদা রঙের বক্সে মোড়ানো। এই বক্সে ইয়ারফোনটির প্যাকিং যে কাওকে মুগ্ধ ও তুষ্ট করতে সক্ষম। কেননা বস্তুর জাঁকজমকতা যে মানুষকে আকৃষ্ট করবেই।

বক্সটি খোলার পর দেখা মিলবে আগলনার f200 ইয়ারফোন ও একটি আকর্ষণীয় অগলমার ইয়ারফোন পাউচ।

বক্সের মধ্যে আরও দেখা মিলবেঃ

  • দুই জোড়া অতিরিক্ত সিলিকনের ইয়ারটিপস (ছোট ও বড় সাইজ, মাঝারি সাইজের আরও একটি থাকছে ইয়ারফোনের সাথে সংযুক্ত)।
  • এক জোড়া সিলিকনের এয়ার হুক্স।
  • একটি শার্ট ক্লিপ।
  • একটি ইউজার গাইড।

সব থেকে মজার ব্যাপার হল এখনকার দিনে শার্ট ক্লিপ দেখায় যায় না যা এই ইয়ারফোনের বক্সের মধ্যে দেওয়া হচ্ছে। অনেকেই হয়ত এই ছোট জিনিসটা মিস করেন।

গুণাগুণঃ

ইয়ারফোনটি মেটাল বিল্ড বডি। এর স্পিকারের বডিতে খুব সুন্দর করে অগলমারের লোগোটি খচিত। ৩.৫ মিলিমিটারের জ্যাকটিও মেটাল বিল্ড এবং সেই সাথে ইয়ারফোনটির স্পিকারদ্বয়ের সংযোগ স্থলও মেটাল কভার দিয়ে সংযুক্ত করা হয়েছে।

ইয়ারফোনটির স্পিকার গ্রিলে নিরাপত্তার জন্য ব্যবহার করা হয়েছে মেটাল যা বাহিরের আঘাত থেকে স্পিকারকে বাঁচাতে সক্ষম। ইয়ারফোনে রয়েছে একটি মাত্র বাটন যা দিয়ে কেবল মাত্র ফোন কল ধরা বা কাটা যাবে। বাটনটিতে বেস ভালমানের প্লাস্টিক ব্যবহার করা হলেও এর বডিটিও মেটালের।

সম্পূর্ণ তারের দৈর্ঘ ১২০ সেন্টিমিটার।তারটি বেস শক্তপোক্ত ও প্রোটেকশন হিসেবে বডিতে সিলকনের কোটিন ব্যবহার করায় এটি নমনীয়। যার ফলে এই তার খুব সহজে ক্ষতিগ্রস্ত হবে না।

ইয়ারফোনটি সম্পর্কে আরও কিছু তথ্য জেনে নেওয়া যাক।

  • প্রোডাক্টের টাইপঃ ear-in-ear moving-coil earphone
  • প্রোডাক্ট ম্যাটেরিয়ালঃ MIM zinc magnesium alloy
  • ড্রাইভ ইউনিটঃ 10mm Garphene diaphragm actuator
  • সেন্সিটিভিটিঃ 105∓2dB/mW
  • ফ্রিকোয়েন্সি রেসপন্সঃ 20Hz-20KHz
  • ইনপুট ইম্পিডেন্সঃ 24ohm

অভিজ্ঞাঃ

ইয়ারফোনটি আমি ব্যবহার করছি ১৫ দিনের ওপরে। অনেকটা রাফলি ব্যবহার করা হয়েছে। সাউন্ড কোয়ালিটি বেস ভালই ছিল এর যা বাজেট হিসেবে এটাকে প্রাধান্য দেওয়ার মত।

বেজ(base) মাত্রাতিরিক্ত না থাকায় অনেকেই এটাকে পছন্দের লিস্টে রাখবে। সাউন্ড-এর স্পষ্টতা পেয়েছি। নয়েজের পরিমাণ শূণ্য বলা চলে।আর বিট-ও যথেষ্ট পেয়েছি বিটের গান গুলোতে।

তবে মাইক্রোফোনটি মোটামুটি লেভেলের লেগেছে। ইয়ারফোনটি ছাড়াই ফোন থেকে ভাল রেকোর্ড করা যাচ্ছিল। কেননা রেকোর্ডিং-এ নয়েজ খুব সহজেই এইটি গ্রহণ করতে সক্ষম। এর কারণ এতে নয়েজ কেন্সেলেশন সিস্টেম নেই যা এই বাজেটে স্বাভাবিক ব্যাপার।

ইয়াফোনটি মেটাল বিল্ড হওয়ায় এর ভর বেস ভাল ভাবেই বুঝতে পারবে এর ব্যবহারকারী।

ইয়ারফোনটিতে বেস ভাল মানের মেটাল ব্যবহার করায় হাত থেকে পড়ে গেলে বডিতে দাগ পড়ার চান্স নেই। এছাড়া হাত থেকে পড়ে গেলেও সাওন্ড কোয়ালিটিতেও কোনো সমস্যার দেখা পাইনি।

তারটি বেস নমনীয়। যার ফলে তারে ভাঁজ পড়লে কিংবা কোনো কিছুর সাথে চাপ খেলে কোনো রকম ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে।

ইয়ারফোনটি কানে লাগালে বাহিরের শব্দ (জোরে শব্দ বাদে) কানের ভেতর যায় না বললেই চলে। আর কানে না লাগানো অবস্থায় ফুল ভলিউমে সাউন্ড বাহিরে আসলেও কানে লাগালে সাউন্ড বাহিরে শোনা সেটা খুবই নগণ্য। আপনার খুব কাছে অন্য কেও না থাকলে শুনতে পারবেনা।

একটানা ব্যবহারে বিরক্তিকর লাগেনা। তবে আবার বলা লাগে যে একটু ভারী হওয়ায় প্রথম প্রথম একটু অস্বস্তি লাগতে পারে এবং তা সাময়িক।অভ্যস্ত হয়ে গেলে আর অস্বস্তিভাবটা থাকবেনা।

সিলিকনের এয়াহুকটা ব্যবহার করার চেষ্টা করেছি।তবে হুকটা ঠিক মত বসে না। যার জন্য আমার কাছে ইয়ারহুক ছাড়াই ভাল লেগেছে। ব্যবহারকারীর পছন্দের ভিত্তিতে ইয়াহুকের ব্যবহারে তারতম্য হতে পারে।

তবে শার্ট ক্লিপটা ব্যবহারে ইয়ারফোনটির তার বার বার টেনে টেনে ঠিক করার প্রয়োজন বোধ হবে না বললেই চলে।

ইয়ারফোন পাউচের মধ্যে জায়গা পর্যাপ্ত পরিমাণে থাকায় ইয়ারফোন সহ এয়ারফোনের প্রয়োজনীয় ইনস্ট্রুমেন্টসও এর মধ্যে খুব ভালভাবেই রাখা যায়।

মতামতঃ

এর দাম হিসেবে এটিকে পছন্দের তালিকায় রাখতে পারেন। আপনার পছন্দের বাজেটে এটি আপনার চাহিদার সবটুকুই মেটাতে সক্ষম।

এই প্রডাক্টটি কেন কিনবেন?

এই বাজেটে অগলমার f200-ই দিচ্ছে আপনাকে সব থেকে বেশি ইনস্ট্রুমেন্ট যা আপনার এয়ারফোন ব্যাবহারের অভিজ্ঞতাকে করবে আরো মজার।

বিল্ডকোয়ালিটিতেও এই বাজেটে এইটিকে বেস্ট বলা চলে। তাই দীর্ঘদিন একই এয়ারফোন যারা ব্যবহার করতে আগ্রহী তাদের জন্য এটি অনুকূল ডিভাইস।

একটি এয়ারফোনের মুখ্য দিক হচ্ছে এর সাউন্ড কোয়ালিটি যা আপনাকে আরও আগ্রহী করে তুলবে এই এয়ারফোনটিকে নিজের করে নিতে।

যে দিক আপনার খারাপ লাগতে পারেঃ

এর খারাপ লাগার মত একটি দিকই পেয়েছি তা হল এটি একটু ভারী। তবে মানুষ অভ্যাসের দাশ। তাই এই দিকটিকে বাদ দিলেও চলে।

দাম ও প্রাপ্তিস্থানঃ

এই ইয়ারফোনটির দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ১৪৫০ টাকা।

প্রোডাক্টটি বাংলাদেশে এনেছে Covers Mart। কিনতে পারবেন তাদের শপ থেকে সরাসরি অথবা অনলাইনে।

দেশী ড্রয়েড-এর রেফারেন্স-এ গেলে ইয়ারফোনটির বিক্রয়মূল্যের ওপর পাবেন ১০% ছাড়!

আমি ব্যক্তিগতভাবে এই এয়ারফোনটিকে কিনতে বলতে পারি যাদের বাজেট ১৫০০ টাকা এর মধ্যে বা ১০০০ টাকা এর থেকে একটু ওপরে। আর আপনার বাজেট যদি ২০০০ এর ওপর হয় বা এর আশেপাশে হয় তবে হয়ত অগলমার f200 থেকেও ভাল কিছু পেয়ে যেতে পারেন।

কিছু তো বলুন

আপনার মন্তব্য লিখুন
আপনার নাম