WiFi এর সমস্যা ও সমাধান ও কিছু টিপস

wifi নিয়ে অনেকেরই বিভিন্ন প্রবলেম হতে দেখা যায়, তাই আজ এই আয়োজন।

আমাদের মাঝে অনেকেই এমন বলে থাকেন যে, দু’জনে সেম স্পিডের সেম ISP লাইন থেকে সেম মডেলের রাউটার চালাই, তবুও স্পিড কমবেশি পাচ্ছি কেন?
এর সমাধান গুলা হচ্ছেঃ

১) পজিশনঃ ছবি ১,২,৩ এ দেখুন। রাউটার টি এমন স্থানে রাখা উচিৎ, যেন সবদিকে সমান সিগন্যাল পায়। আবার রাউটার টি যদি মেঝেতে, মেটালের পাশে, দেওয়াল ঘেঁসে ঘেঁসে রাখা হয়, তাহলে কংক্রিট রড সিমেন্ট মেটালে সিগন্যাল বাধা প্রাপ্ত হয়। তাই খোলামেলা স্থানে রাখুন।

২) আপডেটঃ মোবাইলের মতো রাউটারেও আপডেট করতে হয়, যা অনেকে জানি না বা জানলেও করি না। কোন কোন

রাউটারের ক্ষেত্রে অটো আপডেট হলেও বেশিরভাগ ক্ষেত্রে রাউটার প্রস্তুসকারক কোম্পানীর ওয়েবসাইটে যেয়ে ম্যানুয়ালি ফাইল ডাউনলোড করে আপগ্রেড করা লাগে। ৪ নাম্বার ছবিটা দেখুন।

 

৩) চ্যানেলঃ ২.৫ বা ৫

গি.গা. হার্টজ এর রাউটার এ বিভিন্ন চ্যানেল আর ব্যান্ড আছে। মনে করেন ঢাকা থেকে চিটাগাং যাচ্ছেন ৬ লেনের রাস্তা দিয়ে। এখন সব লেনের অবস্থা এক না, তাই না? জ্যাম দেখে যেমন লেন চেঞ্জ করেন, ঠিক তেমনি WiFi এর চ্যানেল চেঞ্জ করে নিন। আপনার আশেপাশে দেখা যাবে ১০/২০ টা রাউটার আছে, কডলেস ফোন আছে, আরো বিভিন্ন ডিভাইস আছে, যেগুলা সেইম ফ্রিকোয়েন্সি বা চ্যানেল ব্যবহার করছে। তাই WiFi analyzer এপস দিয়ে এনালাইজ করে চ্যা

নেল চেঞ্জ করে নিতে পারেন। ৫,৬,৭,৮.৯ নাম্বার ছবিতে দেখুন।

 

স্পেশালি ৭ নাম্বার ছবিতে দেখুন, ১/৬/১১ নাম্বার চ্যানেলে ওভারল্যাপিং হয় না। এই চ্যানেল অন্যরা ইউজ না করে থাকলে এগুলা ব্যবহার করতে পারেন।

৪) Channel Width: চ্যানেলের width যত বেশি, ততই ভালো। কিন্ত ইন্টারফেয়ারেন্স এর মাত্রা বেড়ে যাবার সম্ভাবনা বাড়ে। তাই আশেপাশের চ্যানেল গুলা এনালাইজ করে সেট করুন। ১০ নাম্বার ছবিটা দেখুন।

 

৫) এন্টেনাঃ ভালো সিগন্যাল পেতে হলে হাই গেইন এন্টেনার প্রয়োজন। টিপিলিঙ্ক সহ অনেক রাউটারে তো ফিক্সড এন্টেনা থাকলেও অনেক রাউটারে চেঞ্জ করা যায়। বেশি সমস্যা হলে চেঞ্জ করে দেখতে পারেন। ছবি ১৩ এ দেখুন।

 

 

৬)রিপিটারঃ বাসা যদি অনেক বড় হয়, সব কোনায় রেঞ্জ পাচ্ছে না? তাহলে WiFi Repeater ইউজ করতে পারেন। ছবি ১৪।

 

বেসিক কিছু টিপসঃ

১) সিকিউরিটিঃ WPA2-psk(AES) ইউজ করতে পারেন। সহযে হ্যাক করা সহজ না। ছবি ১১ নাম্বারে দেখুন।

 

২) গেস্ট নেটওয়ার্কঃ এটা চালু করে রাখলে অনেক সুবিধা আছে। যেমনঃ মনে করুন 2mbps এর লাইন চালাচ্ছেন, আশেপাশের অনেকের আবদার থাকে, বাসায় মেহমান আসে, তাদেরকে পাসওয়ার্ড না দিলে চলে না। সেক্ষেত্রে গেস্ট নেটওয়ার্কের পাসওয়ার্ড দিয়ে চালাতে দিন। আর গেস্ট নেটওয়ার্কের জন্য স্পিড লিমিট করেদিন। তারা যতই চালাক না কেন, আপনার মেইন লাইনে আপনি ভালো স্পিড সবসময়ই পাবেন। ১২ নাম্বার ছবি দেখুন।

        

 

bonus

 

 
মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Previous Post

কিভাবে কাস্টম রম থেকে অফিশিয়াল রমে যাবেন

Next Post

Band 2 VS Huawei Color Band A2

Related Posts

Ourspop B20 ওয়্যারলেস ব্লুটুথ স্পোর্ট মিনি স্পিকার পর্যালোচনা

আজ আপনাদের এমন একটি গেজেট এর সাথে পরিচয় করিয়ে দিব যেটা আপনার মিউজিক শোনার এক্সপিরিয়েন্স কে অন্য লেভেল…
পড়ুন