রুটেড ফোনের জন্য সেরা ১০ টি অ্যানড্রয়েড অ্যাপ !

স্মার্ট ফোন চালান আর ফোন রুট (root) এর কথা শুনেননি এমন মানুষ খুব কমই আছেন । অনেকেই আছেন এখন রুট ইউজার। আবার অনেকে রুট সম্পর্কে জানেন কিন্তু ভয়ের কারণে রুট করতে পারেন না। রুট করার ফলে আপনি নিজের মতো করে আপনার ডিভাইস কে কন্ট্রোল করতে পারবেন। আজকে আমার জানা সেরা দশটি রুট অ্যাপ নিয়ে লিখব। এইগুলো আমরা সচরাচর অনেকেই ব্যবহার করি । আমার দিক থেকে আমার কাছে এগুলাই সেরা।আপনাদের জানা কিংবা ব্যাবহার করা কোন রুট অ্যাপ থাকলে তা কমেন্ট সেকশন এ জানাতে পারেন। তাই দেরি না করে শুরু করে দিলাম।

  • Greenify : 

বর্তমানে মোবাইল কেনার সময় আমরা যা লক্ষ্য করি তা হলো এর ব্যাটারী ক্যাপাসিটি। কিন্তু পর্যাপ্ত ব্যাটারী ক্যাপাসিটি থাকা সত্ত্বেও অনেক সময় সবচেয়ে ভালো ব্যাকআপ আমাদের পাওয়া হয়ে ওঠেনা । Greenify এমন একটি App যা আমাদের ব্যাটারী ব্যাকআপ বাড়াতে সহায়তা করে। কিভাবে করবে সেটি অনেকের প্রশ্ন।Greenify ব্যবহারকারী যখন কোনো app ব্যবহার করে না সেই মুহূর্তে ওই app টির backgroud process সয়ংক্রিয়ভাবে হাইবারনেট করে রাখবে । অর্থাৎ সেই অ্যাপ গুলো ব্যাকগ্রাউন্ড এ কোন কাজ করবে না। এর ফলে এই app ব্যবহারকারীর ফোনের ব্যাটারী অনেকটাই সঞ্চয় হবে।

ফোন রুট করা থাকলে আজই ট্রাই করে দেখতে পারেন।

 

  • Kernel Adiutor:

আপনি কি চান মোবাইল কে একটু টুইএক্স করতে? সিপিইউ কে ওভারক্লকড বা আন্ডারক্লকড করতে পারবেন এই অ্যাপ দিয়ে। ভাবছেন ঐগুলো করে কি হবে!?আপনি যদি ভালো পারফরমেন্স পেতে চান তাহলে ওভারক্লকড করবেন। এতে হবে কি আপনার প্রসেসর এর সর্বোচ্চ ক্ষমতায় কাজ করবে। এর ফলে আপনি পাবেন অসাধারণ পারফরমেন্স। আবার যদি চান ব্যাটারী ব্যাকআপ বাড়াতে তাহলে করে ফেলুন আন্ডারক্লকড। এর ফলে আপনার সিপিইউ কম ইউজ হবে এতে ব্যাটারী ব্যাকআপ ভালো পাবেন কিন্তু পারফরমেন্স খারাপ হবে।

ফোন রুট করা থাকলে আজকেই ট্রাই করতে পারেন।

  • Titanium Backup :

আমরা অনেকেই কাস্টম রম ইউজ করি। কাস্টম রম ইউজাররা পারলে প্রতিদিন রম চেঞ্জ করে। এরফলে আপনার ফোনের data মুছে (wipe) ফেলা লাগে । যার জন্য সকল অ্যাপ-এর data মুছে যায়। তারপর এইগুলা আবার ইন্সটল করে একটা একটা করে সব চেক করে ঠিকঠাক করা অনেক বিরক্তিকর। এই বিরক্তিকর জিনিসটা যাতে না করা লাগে বার বার সেই জন্য এই Titanium Backup। যার সহায়তায় ব্যাকআপ নিতে পারবেন সকল app data।

এর জন্য এর প্রিমিয়াম ভার্সন অ্যাপ টা বেটার আমি মনে করি। কেউ ইউজ করলে তা জানাতে পারেন আমাদের কমেন্ট সেকশন এ।

  • Xposed Framework :

এই অ্যাপটির নাম অনেকেই শুনেছেন ।নাম শুনলেও হয়তো অনেকে জানেন না আসলে এটি দিয়ে কি করা হয়। সমস্যা নেই। সব জনলে আর আমরা কষ্ট করে কেন জানানোর চেষ্টায় থাকব! এটি দিয়ে আপনি আপনার ডিভাইস এর সর্বোচ্চ কাস্টমাইজেশন করতে পারবেন। তবে চলুন জানা যাক কি কি করা যায় !

মনে করুন, আপনার ডিভাইস এর বুট লোগো চেঞ্জ করে অন্য ব্র্যান্ড এর কিছু ইউজ করতে চাচ্ছেন। সেটি করতে পারবেন আপনি এই অ্যাপটি দিয়ে।তারপর আপনার নোটিফিকেশন প্যানেল এ পরিবর্তন আনতে পারবেন। এছাড়াও বিভিন্ন দেশের ডেভেলোপার সাপোর্ট পাবেন আপনার ডিভাইসের জন্য। তারা নতুন নতুন মডিউল আপলোড করে। এতে আপনার ডিভাইসকে দিতে পারবেন নিউ একটি লুক।

  • System App Remover:

ডিভাইস রুট করা থাকলে সবচেয়ে প্রয়োজনীয় অ্যাপ এইটা আমি তা মনে করি। এখনকার ডিভাইসগুলোতে অনেকগুলো অ্যাপ প্রি-ইনস্টলড থাকে। এর ফলে আপনার ডিভাইস এর র্যাম এবং রম দুটোরই জায়গা দখল করে। চাইলে আপনি এইগুলো রিমুভ করতে পারবেন এবং পরিষ্কার একটি UI (User Interface) উপভোগ করতে পারবেন।

  • Boot Animation :

Xposed framework-এ boot animation পরিবর্তন করা গেলেও সব ডিভাইস এ Xposed framework সাপোর্টে করে না। তাই যারা বুট অ্যানিমেশন চেঞ্জ করতে চান তারা অবশ্যই এই অ্যাপটি ব্যবহার করতে পারেন। বিভিন্ন বুট অ্যানিমেশন ইউজ করে ডিভাইসকে দিতে পারবেন নতুন একটি রূপ।

  • Disk Digger :

আমরা অনেকেই ভুল করে অনেক সময় আমাদের প্রয়োজনীয় ছবি ডিলেট করে দেই। খুব দুঃখজনক ব্যাপার এটি। কিন্তু যদি আপনার ডিভাইসটি থাকে রুট করা তাহলে আপনি চাইলে ডিলেট করা ছবিগুলো এই অ্যাপ-এর মাধ্যমে সহজেই ফিরে পেতে পারেন। এটি্র প্রিমিয়াম ভার্সন অ্যাপটি ইউজ করার পরামর্শ দিচ্ছি।

  • Fontster :

অনেকেই আমরা আমাদের স্মার্টফোনটিতে কাস্টম ফন্ট ইউজ করতে পছন্দ করি। কিন্তু অনেক ডিভাইস-এ চাইলেই কাস্টম ফন্ট ব্যবহার করা যায় না।যদি ডিভাইস রুট করা থাকে তাহলে খুব সহজেই Fonster এর মাধ্যমে কাস্টম ফন্ট ব্যবহার করতে পারবেন।

  • Root firewall :

আপনার ইন্টারনেট ডাটা ও ব্যাটারী লাইফ বাঁচাতে এই অ্যাপটি বেস্ট। কারণ এর মাধ্যমে আপনি ডাটা কন্ট্রোল করতে পারবেন। আর এটির একটি বিশেষ ফিচার হচ্ছে এইটাই ইনবিল্ট এড ব্লকার আছে।

  • Magisk Manager :

বর্তমান সময়ে রুট ইউজারদের কাছে সবচেয়ে জনপ্রিয় অ্যাপটি হচ্ছে Magisk Manager।এটি SU এর অল্টারনেটিভ। অ্যাপটিতে রয়েছে অনেকগুলো মডিউল।গুছানো ইন্টারফেস সহ এটির একটি স্পেশাল ফিচার আছে। সেটিই হলো এটি দিয়ে আপনি নির্দিষ্ট অ্যাপের রুট হাইড করতে পারবেন।

পোস্টটি লিখেছেন – Pritom Das

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Previous Post

রেডমির নতুন ফোন কাপাবে বাঁজার

Next Post

[TechSa #3] একনজরে জেনে নিন eSIM সম্পর্কে।

Related Posts

[TechSa #4] এক নজরে জেনে নিন Search Engine সম্পর্কে।

ইন্টারনেট যগতে Search Engine হল এমন একটি ইঞ্জিন/যন্ত্র (নির্দিষ্ট কিছু প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ ও বিভিন্ন এলগরিদম ব্যবহার করে তৈরি…
পড়ুন

মোবাইল ফোনের রেডিয়েশন কি? কিভাবে বাঁচবেন?

মোবাইল ফোন মানেই তারবিহীন প্রযুক্তি। ইলেক্ট্রোম্যাগনেটিক তরঙ্গের মাধ্যমেই এইগুলা কাজ করে থাকে। Electromagnetic wave বা তড়িৎচৌম্বকীয় তরঙ্গ মানে…
পড়ুন